করোনাভাইরাস শনাক্তের পর ছয় মাস পেরিয়ে গেল। অতি সংক্রামক এই ভাইরাসের উৎস খুঁজতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) আবারও একটি বিশেষজ্ঞ দল চীনে পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে। বিশ্বজুড়ে ৫ লাখের বেশি মানুষের প্রাণ কেড়ে নেয়া এই ভাইরাসের উৎস তদন্তে ডব্লিউএইচওর বিশেষজ্ঞ দল আগামী সপ্তাহে চীন যাবে।
ডব্লিউএইচওর মহাপরিচালক টেড্রোস আধানম গেব্রেয়েসুস জেনেভায় এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আমরা যখন এটি সম্পর্কে সবকিছু জানতে পারব, তখন আরো ভালোভাবে লড়াই চালাতে পারব। চীনের মধ্যাঞ্চলের হুবেই প্রদেশের উহানের একটি সামুদ্রিক খাবারের বাজার থেকে ছয় মাস আগে এই ভাইরাসটি বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। নিউমোনিয়ার মতো রহস্যময় এই ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট রোগকে পরবর্তীতে কোভিড-১৯ নামকরণ করা হয়।
হু ১১ মার্চ মহামারি ঘোষণা করে। বর্তমানে বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে এক কোটি ২০ হাজারের বেশি মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এখনো পর্যন্ত এর কোনো প্রতিষেধক পাওয়া যায়নি। তবে চীন তাদের সামরিক বাহিনী এবং সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে তিনটি ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু করেছে।
এর আগে ফেব্রুয়ারিতে হু এবং চীনের যৌথ তদন্ত দলে ছিলেন ২৫ সদস্যের মেডিকেল বিশেষজ্ঞ। বিশেষজ্ঞরা ভাইরাসটি বাদুড়ের মাধ্যমে মানবদেহে সংক্রমিত হতে পারে বলে জানিয়েছিলেন। কিন্তু সেই সময় ভাইরাসটির উৎস নিয়ে শুরু হয় রাজনৈতিক দোষারোপ।