শিবির সন্দেহে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শাহেদ নামে এক শিক্ষার্থীকে বেধড়ক মারধর করেছে শাখা ছাত্রলীগের একাংশের (সিক্সটি নাইন) নেতা-কর্মীরা। আজ মঙ্গলবার দুপুরের দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের ঝুঁপড়ির সামনে তাকে মারধর করা হয়।
মারধরের শিকার শিক্ষার্থীর নাম মোহাম্মদ শাহেদুল ইসলাম। সে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনিস্টিটিউটের ২০১৪-১৫ সেশনের শিক্ষার্থী বলে জানা গেছে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়,এর আগেও শাহেদকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহজালাল হলের একটি কক্ষে মারধর করে শাখা ছাত্রলীগের একাংশের নেতা-কর্মীরা। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে।
আজ মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে কলার ঝুঁপড়িতে নাস্তা করতে গেলে শাখা ছাত্রলীগের একটি গ্রুপের (সিক্সটি নাইন) ১০-১২ জন নেতা-কর্মী শাহেদকে আবারও মারধর করে। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ শাহেদকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে যায়।
চবি মেডিকেল সেন্টারের চীফ মেডিকেল অফিসার ডা. আবু তৈয়ব বলেন, আহত শিক্ষার্থীর মাথায় গুরুতর আঘাত করা হয়েছে। তাই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় সহকারী প্রক্টর লিটন মিত্র বলেন, শাহেদ নামের এক শিক্ষার্থীকে মারধরের খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যায়। পরে তাকে পুলিশের সহায়তায় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে চবি মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে চবি শাখা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মনসুর আলম বলেন, শাহেদ নামের যে ছেলেটিকে মারধর করা হয়েছে, শিবিরের রাজনীতির সাথে তার সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে আমাদের কাছে একাধিক তথ্য-প্রমাণ আছে ।