সংযুক্ত আরব আমিরাত নিয়ে আসছে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এই টি-টোয়েন্টি লিগ, যেটির নাম টি-টোয়েন্টিএক্স। পেট্রোডলারের ঝনঝনানিতে এরই মধ্যে বিগ ব্যাশকে পেছনে ফেলে দিয়েছে টি-টোয়েন্টিএক্স। ১৯ ডিসেম্বর শুরু হবে টি-টোয়েন্টিএক্স, শেষ হবে ১১ জানুয়ারি।
অস্ট্রেলিয়ার বিগ ব্যাশকে তাহলে একটু চাপেই ফেলে দিল সংযুক্ত আরব আমিরাতের টি-টোয়েন্টিএক্স!

আরব আমিরাতের ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এই টি-টোয়েন্টি লিগে কোন পাঁচটি দল খেলবে, তাই ঠিক হয়নি এখনো। তবে পেট্রোডলারের ঝনঝনানিতে এরই মধ্যে বিগ ব্যাশকে পেছনে ফেলে দিয়েছে টি-টোয়েন্টিএক্স। দল ঠিক না হলেও খেলোয়াড় কেনা শুরু করে দিয়েছেন আয়োজকেরা। তিন সপ্তাহের টুর্নামেন্টের জন্য ইংল্যান্ডের সীমিত ওভারের অধিনায়ক এউইন মরগানকে ২ লাখ ৭০ হাজার পাউন্ড (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২ কোটি ৯৪ লাখ টাকা) দিয়ে আইকন খেলোয়াড় হিসেবে কিনেছে লিগটি। যার অর্থ প্রতি সপ্তাহে মরগানের আয় প্রায় কোটি টাকা। ডিসেম্বর-জানুয়ারির এই লিগে খেলার জন্য বিগ ব্যাশকে না করে দিয়েছেন মরগান। আর করবেন নাই-বা কেন, বিগ ব্যাশে পুরো মৌসুম খেলে ‘মাত্র’ ১ লাখ পাউন্ড পেতেন তিনি।

নতুন টুর্নামেন্টটা বিগ ব্যাশের জন্যই বেশি যন্ত্রণাদায়ক হচ্ছে। বিগ ব্যাশের দলগুলো খেলোয়াড় পাচ্ছে না পছন্দমতো। বেশির ভাগ বিদেশি খেলোয়াড়ই বলে দিয়েছেন আমিরাতের লিগের নিলামের আগে তাঁরা কথা দিতে পারবেন না। অল্প সময়ে বেশি টাকা, টি-টোয়েন্টিএক্সে সুযোগ পেলে কি আর কেউ বিগ ব্যাশে খেলবেন!

আগামী ১৯ ডিসেম্বর শুরু হবে টি-টোয়েন্টিএক্স, শেষ হবে ১১ জানুয়ারি। অন্যদিকে ১৯ ডিসেম্বর শুরু হয়ে বিগ ব্যাশ শেষ হবে ১৭ ফেব্রুয়ারি। মরগানের আগেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের আন্দ্রে রাসেল ও দক্ষিণ আফ্রিকার ডেভিড মিলারকে আইকন হিসেবে নিয়েছে লিগটি। রাসেল-মিলারকে কত অর্থ দিচ্ছে, তা অবশ্য জানা যায়নি। আবুধাবি, দুবাই ও শারজা, আমিরাতের এই তিন শহরে হবে ম্যাচগুলো। টুর্নামেন্টের শুভেচ্ছাদূত করা হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্সকে।