বাংলাদেশের গীতিকার জুলফিকার রাসেলের লেখা গানে এর আগে ভারতের অনেক সংগীতশিল্পী কণ্ঠ দিয়েছেন। এর মধ্যে আছেন অঞ্জন দত্ত, নচিকেতা, সনু নিগম, রূপঙ্কর, ইন্দ্রনীল, পলক মুছাল, অন্বেষা। তাঁরা সবাই বাংলা গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। এবার এই গীতিকারের লেখা হিন্দি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন ভারতের প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী হরিহরণ। ‘পিয়া বাওরি’ শিরোনামের গানটিতে কণ্ঠ দেওয়ার কাজ ২৭ আগস্ট মুম্বাইয়ে হরিহরণের নিজের স্টুডিওতে শেষ হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গীতিকার নিজেই।

হরিহরণের কণ্ঠে নিজের লেখা গান থাকবে, এমন স্বপ্ন জুলফিকার রাসেলের অনেক দিনের। ‘পিয়া বাওরি’ তাঁর সেই স্বপ্ন পূরণ করে দিয়েছে। এর জন্য তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ভারতের সংগীত পরিচালক টুনাই দেবাশীষের কাছে। তাঁর আন্তরিকতায় এটা সম্ভব হয়েছে।

জুলফিকার রাসেল বলেন, ‘শ্রদ্ধেয় হরিহরণের কণ্ঠে আমার লেখা একটা গান থাকবে, এই স্বপ্ন দেখার আগে নিজেকে তৈরি করেছি। ইচ্ছে ছিল কাজটা করব বাংলা ভাষায়! কারণ আমি বাংলায় গান লিখি! হিন্দি বুঝি এবং মোটামুটি বলতে পারলেও লেখা আমার পক্ষে প্রায় অসম্ভব ব্যাপার ছিল। ২-৩ বছর আগে বন্ধু সংগীত পরিচালক টুনাইকে জানাতে সেও এক্সাইটেড! বলল, “হরিজির গান করলে হিন্দিতেই করা উচিত।” আমার কাছেও যথাযথ মনে হলো! হরিহরণকে যখন আমাদের ইচ্ছার কথা জানানো হলো, তিনি জানালেন, গান পছন্দ হলে গাইবেন! এ নিয়ে দ্বিতীয় কোনো কথা বলা যাবে না! তাঁকে গান পাঠানো হলো। কিছুদিন পর জানালেন, পছন্দ হয়েছে! পরিকল্পনা অনুযায়ী গানটিতে কণ্ঠ দেওয়ার কথা ২৮ আগস্ট। কিন্তু এক দিন আগে স্টুডিওতে গানটা আবার শুনলেন। রেকর্ডিস্টকে জানালেন তখনই কণ্ঠ দেবেন! আমার কথায় ব্যাকরণজনিত কিছু ভুল ছিল। সেগুলো শুধরে দিলেন। গাওয়ার পর গানটা পাঠালেন। আমরা মুগ্ধ হলাম!’

জুলফিকার রাসেল জানালেন, ‘পিয়া বাওরি’ গানটি আগামী ডিসেম্বরে প্রকাশিত হবে।