আফগানিস্তানের বিপক্ষে তামিমকে পাওয়া যাবে কিনা- এটা জানতে অপেক্ষা করতে হবে আরও কয়েকটা দিন। যদিও বিসিবির চিকিৎসক দেবাশীষ বিশ্বাস অবশ্য তামিমের ব্যাপারে সবুজ সঙ্কেতই দিয়ে রেখেছেন। রবিবার দুপুরে সিটি স্ক্যান করানোর পর তামিমের আঙুলে কোনও সমস্যা পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন বিসিবির এই চিকিৎসক। তিনি আফগানিস্তানের বিপক্ষে তামিমের খেলার বিষয়টি ছেড়ে দিয়েছেন তামিমের হাতেই।
এ প্রসঙ্গে দেবাশীষ চৌধুরী বলেছেন, ‘তামিমের অবস্থা এখন ভালো। এখন সব কিছু নির্ভর করছে তামিমের ওপর। দুই-তিন দিন ব্যাটিংয়ে পর বোঝা যাবে তার অবস্থা। তামিম নিজেই বুঝতে পারবে নিজের অবস্থা। তবে আমার মনে হয় না তামিমের আফগানিস্তান সিরিজ মিস হবে। ওখানে খুব স্বাভাবিকভাবেই খেলতে পারার কথা।’ বিসিবির এই চিকিৎসকের কথাতেই স্পষ্ট আফগানিস্তানের বিপক্ষে তামিমের থাকা না থাকা পুরোটাই নির্ভর করছে তামিমের ওপর! কেননা আফগানিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশ প্রথম ওয়ানডে খেলবে ২৫ সেপ্টেম্বর। তার আগে তামিমের হাতে সময় রয়েছে ৫ দিন। এই সময়টাতে খুব সহজেই নিজেকে মানিয়ে নেওয়ার সুযোগ পাবেন তামিম।

২০ জুলাই থেকে শুরু হয়েছে টাইগারদের কন্ডিশনিং ক্যাম্প। এর এক মাস পর ২০ আগস্ট থেকে শুরু হয় টাইগারদের স্কিল অনুশীলন ক্যাম্প। ২৭ আগস্ট ক্যাম্পের শুরুর দিকে ফিল্ডিং অনুশীলন করতে গিয়ে বাম হাতের কড়ে আঙুলে আঘাত পান ড্যাশিং এই ওপেনার। আঙুলে চিড় ধরা পড়ায় অনুশীলন থেকে বিরত থাকেন। এমনকি দুই দলে ভাগ হয়ে নিজেদের মধ্যে খেলা তিনটি অনুশীলন ম্যাচের একটিতে মাঠেও নামতে পারেননি তামিম।

এদিকে ঈদের ছুটি কাটিয়ে রবিবার ফের শুরু হয়েছে টাইগারদের স্কিল অনুশীলন। প্রথম দিনেই ব্যাট হাতে নিয়েছেন টাইগার এই ওপেনার। ইনডোরে যাওয়ার আগে অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজের বলে কিছুক্ষণ নক করেন তামিম। এর পরই ইনডোরে গিয়ে আধাঘণ্টা নেটে ঘাম ঝড়ান বাংলাদেশের সেরা এই ওপেনার।