বাগেরহাটের শরণখোলায় বন বিভাগের হাতে ২০ কেজি মাংস সহ আটক ১

0
7


ম.ম.রবি ডাকুয়া
বাগেরহাট

বাগেরহাটের শরণখোলায় ২০ কেজি হরিণের মাংস সহ এক চোরা কারবারিকে আটক করেছে বন বিভাগ।আটক কৃতের নাম মিলন মোড়ল (৩৫)রোববার মধ্য রাতে উপজেলার রায়েন্দা ইউনিয়নের বন সংলগ্ন রসুলপুর গ্রামের ভেড়ি বাঁধের থেকে তাকে আটক করা হয় বলে জানা গেছে।
সুত্র জানায় আটক মিলন দির্ঘ্যদিন যাবৎ এ ধরনের হরিণের মাংস চোরা কারবারির সাথে জড়িত।তার কাছে ১০ টি প্যকেটে ২০কেজি হরিনের মাংস জব্দ করা হয়েছে।সে যশোররের ঝিকরগাছা উপজেলার বাসিন্দা আঃ লতিফ মোড়লের ছেলে।দীর্ঘ্য ৭-৮ বছর আগে সে স্থানীয় বিভিন্ন জায়গায় রাজ মিস্ত্রীর কাজ করে আসছিল।পরে সে কয়েক বছর এ কাজের সাথে জড়িযে পরে।তার বিরুদ্ধে এ ব্যপারে বন আইনে একাধিক মামলাও রয়েছে।সে বর্তমানে পরিবার পরিজন নিয়ে রায়েন্দা টিএনটি এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে এসব কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে।
সুন্দরবনের পূর্ব শরণখোলা ষ্টেশন কর্মকর্তা (এসও)আঃ মান্নান জানান,গোপন সংবাদের ভিত্তিতে টহল ফাড়ির বনরক্ষীদের রাতে আভিযানে নামেন।এ সময় রসুল পুর নামক ভেডিবাঁধের ওপর বনরক্ষিদের উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর সময় ধাওয়া করে মিলনকে আটক করতে সক্ষম হয়।পরে তার কাছ থেকে ২০ কেজি হরিণের মাংস জব্দ করা হয়।
বন বিভাগের হাতে আটক মিলন কর্মকর্তাদের জিজ্ঞাসাবাদে জানায়,শরণখোলা উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়নের সোনাতলা নামক ঢালীর গোপ এলাকার শিকারী হবিব তালুকদার ও তানজেন বয়াতির কাছ থেকে সে নিয়মিত হরিণের মাংস কিনে বিক্রী করে থাকে।এবং শুক্রবারে বকুল তালা গ্রামের মৎস্য আহরনকারী চান্দু মিয়ার ট্রলারে সুন্দরবনের বিভিন্ন এলাকা থেকে দুই শিকারী তাকে এসব মাংসের জোগান দেয়।তারা বর্তমানে ওখানে শিকারে লিপ্ত আছে বলে ও জানায় মিলন।
বন বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা জানায় উল্লেখিত দুই শিকারী হাবিব তালুকদার ও তানজের বয়াতীর নামে বনি বিভাগে বন আইনে একাধিক মামলা রয়েছে।আটক মিলনকে বন আইনে মামলা দিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here