সর্দি, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট থাকা এক নারীর মৃত্যুর পর তাকে রাজধানীর খিলগাঁও তালতলা কবরস্থানে নীরবে দাফন করা হয় । রবিবার (২৯ মার্চ) সন্ধ্যায় ৫০ বছর বয়সী ওই নারীকে দাফন করা হয়। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যু হয় বলে সন্দেহ করছেন স্বজনরা। মোহাম্মদপুরের এই বাসিন্দার মরদেহ যারা দাফন করেছেন তাদের শরীরে ছিল পারসোনাল প্রোটেকটিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই)।

ফেসবুকে এরই মধ্যে এই দাফনের একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, পাঁচজন ব্যক্তি কবরস্থানের ঝিলপাড়ের প্রান্তে গিয়ে নেমেছেন। প্রত্যেকের পরনে পিপিই। এম্বুলেন্স থেকে একটি স্ট্রেচারে করে সাদা কাফনে মোড়ানো লাশ নামানোর পর কবরস্থানের ইমাম ও উপস্থিত আটজন মিলে জানাজা পড়েন। জানাজা শেষে স্ট্রেচারে করে মৃতদেহটি কবরের কাছে নেন তারা। মৃতদেহটি কবরে নামান পিপিই পরা তিনজন। দাফন শেষে ওই পাঁচজন ঝিলের পাড়ে এসে পিপিই খুলেন এবং পিপিইগুলোতে আগুন ধরিয়ে দিয়ে নষ্ট করা হয়। এ বিষয়ে খিলগাঁও তালতলা কবরস্থানের স্টাফ মো. ফেরদৌস বলছিলেন, ওই নারীর স্বামী ও সন্তানরা দাফনে উপস্থিত ছিলেন। দাফনের আগে তারা কয়েকজন জানাজা পড়েন।

www.traveltolleybd.com
www.traveltrolleybd.com

মৃত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন কি না, তা এখনো জানতে পারেননি ওই নারীর স্বামী। মৃতের স্বামী জানান, তার স্ত্রী কয়েক দিন ধরেই সর্দি, জ্বর, শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। খুব বেশি অসুস্থ ছিলেন না। তবে তারা হাসপাতালে যাননি। তিনি বলেন, আইইডিসিআরে (সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানক) জানানো হলে রবিবার (২৯ মার্চ) সকালে আমাদের মোহাম্মদপুরের বাসায় এসে নমুনা নিয়েছে। তবে পরীক্ষার ফল এখনো পাওয়া যায়নি বলেও জানান তিনি।