আজ ৩ সেপ্টেম্বর, বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি নায়ক, মহানায়ক উত্তমকুমারের ৯৩তম জন্মদিন। দিনটি পালিত হচ্ছে কলকাতাসহ গোটা পশ্চিমবঙ্গে। সকাল সাড়ে ১০টায় কলকাতার ছবিপাড়া টালিগঞ্জের উত্তম মূর্তির পাদদেশে দিনটির শুভসূচনা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মহানায়ক উত্তম প্রতিষ্ঠিত শিল্পী সংসদের সাধারণ সম্পাদক চিত্রনায়িকা ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, কলকাতা পৌর করপোরেশনের মেয়র ইন কাউন্সিল দেবাশীষ কুমারসহ টালিগঞ্জের একঝাঁক শিল্পী। আরও ছিলেন অভিনেতা অরিন্দম গাঙ্গুলি, পরিচালক রেশমি মিত্র, গায়ক দীপংকর চক্রবর্তী, অশোক ভদ্র, শিশুশিল্পী অন্বেষা, মহানায়ক উত্তমকুমারের নাতি গৌরব চক্রবর্তী প্রমুখ। উত্তমের মূর্তিতে মাল্যদান করার পর কেক কাটা হয়।

ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত বলেন, ‘মহানায়ক উত্তমকুমার আজও অমলিন আমাদের স্মৃতিপটে। তিনি বেঁচে আছেন, বেঁচে থাকবেন আমাদের মাঝে চিরদিন। তিনিই আমাদের আলোকবর্তিকা। আমাদের শিল্পীদের পথপ্রদর্শক।’

মহানায়ক উত্তমকুমারের স্মৃতিবাহী স্টুডিও নিউ থিয়েটার্স ওয়ানের মহানায়কের স্মৃতিকক্ষে বা ব্যক্তিগত সাজসজ্জার ঘরে তাঁর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এখানে রয়েছে মহানায়কের ব্যক্তিগত মেকআপ রুম। সেটি আজ সংরক্ষিত। এখানে রয়েছে মহানায়কের ব্যবহার করা চেয়ার, টেবিল, বিশ্রামের খাট, ব্যবহার করা খড়ম, একটি সাদা পাঞ্জাবি, ইজি চেয়ার, আলনা, গ্লাস, ফুলদানি, প্লেট ও চামচ, মেকআপ করার জন্য টেবিল চেয়ার আয়না ইত্যাদি। মহানায়ক এই রুমে মেকআপ নেওয়ার পর খড়ম পায় দিয়ে শুটিংয়ে যেতেন। মহানায়ক তাঁর সর্বশেষ ছবি ‘ওগো বধূ সুন্দরী’র মেকআপ নিয়েছিলেন এই মেকআপ রুম বা সাজঘরে।

আজ দিনভর নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে মহানায়কের ভক্ত, শিল্পী সংসদ আর উত্তম স্মৃতি সংসদ। মহানায়কের প্রতিষ্ঠিত শিল্পী সংসদ শিল্পীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান, আলোচনা এবং সংগীতানুষ্ঠানের আয়োজন করে কলকাতার রবীন্দ্র সদনে। এখানে বিশিষ্ট শিল্পীদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এ ছাড়া দক্ষিণ কলকাতার উত্তম মঞ্চে আয়োজন করা হয় সংগীতানুষ্ঠান। এখানে যোগ দেন কলকাতার নামী শিল্পীরা। প্রকাশিত হয়েছে মহানায়কের বিভিন্ন ছবির পোস্টার নিয়ে ‘মহানায়কের দিনপঞ্জিকা’।

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সচিবালয় নবান্নে মহানায়কের মূর্তিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে মহানায়কের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানানো হয়।