ইদলিব প্রদেশে একটি বিমান হামলার পর

সিরিয়ার ত্রাণকর্মীরা জানিয়েছে, গত দশ দিনে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকার হাসপাতালগুলো লক্ষ্য করে অন্তত দশটি সরাসরি বিমান হামলা চালানো হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা এবং পর্যবেক্ষকরা দাবি করছেন, সিরিয়ায় এসব বিমান হামলায় অন্তত বিশজন নিহত হয়েছে।

চিকিৎসা সেবা দানকারী ত্রাণ সংস্থাগুলোর একটি জোটের একজন মুখপাত্র জানান, সিরিয়ার সরকারি বাহিনী এবং রাশিয়ার জঙ্গী বিমানগুলো এসব বিমান হামলা চালায়।

তিনি গত এক বছরের মধ্যে এটিকে সবচেয়ে তীব্র হামলা বলে বর্ণনা করেন। সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস বলছে, নিহত ২০ জনের মধ্যে রয়েছে ১১ জন মহিলা এবং তিনটি শিশু।

ত্রাণ সংস্থাগুলোর জোটের একজন মুখপাত্র হ্যামিশ ব্রেটন-গর্ডন জানিয়েছেন, তাদের বিশ্বাস, রাশিয়া এবং সিরিয়ার জঙ্গী বিমানগুলোই এসব হামলার পেছনে আছে।

তিনি জানান, উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ ইদলিবের হাসপাতালগুলো এই হামলার শিকার হয়েছে। এছাড়া দামেস্কের উপকন্ঠের বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত একটি এলাকাও হামলার শিকার হয়।

বিদ্রোহীরা যেসব এলাকার মধ্যে কোণঠাসা এবং অবরুদ্ধ হয়ে আছে, সেসব এলাকার অবস্থাই সবচেয়ে খারাপ বলে বর্ণনা করা হচ্ছে।

মিস্টার ব্রেটন-গর্ডন জানিয়েছেন, অন্তত ১৩৫টি শিশুকে জরুরী চিকিৎসা দেয়ার জন্য এসব এলাকা থেকে উদ্ধার করে আনা প্রয়োজন।