সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় তিন বছরের সাজার বিরুদ্ধে আপিল করেছেন কক্সবাজার-৪ আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি। গত বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আপিল আবেদন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী নাসরিন সিদ্দিকা লীনা। গত ২ নভেম্বর ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৩-এর বিচারক আবু আহমদ জমাদার দুই বছর আগে দায়ের হওয়া দুর্নীতির মামলাটিতে বদিকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেন। একইসঙ্গে তাকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও তিন মাস কারাদণ্ড দেন। মামলার নথি সূত্রে জানা যায়, কক্সবাজার-৪ আসনের আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদির বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন এবং তথ্য গোপনের অভিযোগে এনে ২০১৪ সালের ২১ আগস্ট নগরীর রমনা থানায় মামলা করে দুদক। দুদকের উপ-পরিচালক মঞ্জিল মোর্শেদ ২০১৫ সালের ৭ মে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে বদির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন। অভিযোগপত্রে বদির বিরুদ্ধে ৬ কোটি ৩৩ লাখ ৯৪২ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন এবং ৩ কোটি ৯৯ লাখ ৫৩ হাজার ২৭ টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের বিষয়টি তুলে ধরা হয়। ২০১৫ সালের ৮ সেপ্টেম্বর অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে দুর্নীতির এই মামলায় বদির বিচার শুরু করে আদালত। এ মামলায় দুদকের পক্ষে মোট ১৩ জনের সাক্ষ্য নেন আদালত। চলতি বছর ১৯ অক্টোবর যুক্তিতর্ক শুনানি শেষ করে ২ নভেম্বর রায় ঘোষণা করা হয়। রায় ঘোষণার পরপরই তাকে কারাগারে পাঠিয়ে দেয়া হয়।