নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় একটি ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে।
নিহত আকরাম হোসেন (২৫) উপজেলার অর্জুনতলা ইউনিয়নের উত্তর মানিকপুর গ্রামের গ্রামের আবদুল গফুরের ছেলে।

শনিবার ভোরে ওই ওই গ্রামে বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে বলে সেনবাগ থানার ওসি আবদুল বাতেন মৃধা জানান।

তিনি বলেন, “গোপন খবর পেয়ে আকরামকে ধরতে যায় পুলিশ। আকরাম ও তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ করে এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশ পাল্টা গুলি ছোড়ে।

“প্রায় ১৫ মিনিট গোলাগুলির একপর্যায়ে আকরামের সহযোগীরা পালিয়ে যায়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আকরামকে চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।”

মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি, দুই রাউন্ড কার্তুজ, ছয়টি গুলির খোসা ও একটি চাইনজ কুড়াল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ওসি বলেন, বন্দুকযুদ্ধে পুলিশে এএসআই লোকেন মহাজন, কনস্টেবল এমরান ও জিয়া আহত হলে তাদের সেনবাগ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

গত ৬ জুন অর্জুনতলা গ্রামের এক তরুণীকে দল বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগে ১১ জুন আকরামসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়। এর আগে মামলার আরও তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। অন্যরা পলাতক বলে জানিয়েছেন ওসি আবদুল বাতেন।