ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কলকাতায় একটি রেললাইনের ওপর দিয়ে যাওয়া ফ্লাইওভারের একাংশ ভেঙে পড়ার পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ একজনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে।

আহত ২১ জনকে স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। ধ্বংসস্তূপের ভেতর কয়েকজন আটকা পড়েছে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

কলকাতায় বিবিসির সংবাদদাতা অমিতাভ ভট্টশালী কিছুক্ষণ আগে জানিয়েছেন উদ্ধারকাজ রাতভর চলেছে ও এখনো অব্যাহত আছে।

ধ্বংসস্তূপের মধ্যে কোথাও কেউ আটকে আছে কি-না সেটি কংক্রিট কেটে দেখা হচ্ছে।

তবে মাঝরাত অবধি ধ্বংসস্তূপের মধ্যে দুজনের সাড়া পাওয়া গেছে।

“সেতুটি পুরনো আর রক্ষণাবেক্ষণ খুব একটা ভালো ছিলোনা। আবার ফ্লাইওভার ঘেঁষেই মেট্রো রেলের পিলার বসানো হচ্ছিলো। কিন্তু আসলে কেন এই দুর্ঘটনা ঘটেছে সেটি জানতে তদন্ত রিপোর্ট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে”।

কলকাতার সাথে দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের মূল যোগাযোগের মাধ্যম ছিলো এই ফ্লাইওভার। সেটিই এবার ক্ষতিগ্রস্ত হলো।

“তবে অফিস ছুটির আগেই দুর্ঘটনাটি হওয়ায় বড়সড় প্রাণহানি থেকে রক্ষা পাওয়া গেছে-এটা অনেকেই বলছিলেন”।

২০১৬ সালেও কলকাতায় ফ্লাইওভার ধ্বসে অন্তত ২৪ জন নিহত হয়েছিলো। এখন আবার দুর্ঘটনা ঘটলো- সড়ক নিরাপত্তা নিয়ে কী বলছে কর্তৃপক্ষ?

জবাবে অমিতাভ ভট্রশালী জানান ২০১৬ সালে দুর্ঘটনা হয়েছিলো নির্মাণাধীন ফ্লাইওভারে, এবারের সেতুটা অনেক পুরনো।

“তবে কলকাতার মানুষ এখন এসব সেতু নিয় আতঙ্কিত। সেতুর ওপর বা নীচ দিয়ে যেতে অনেকে মানসিকভাবে ভয় পাচ্ছেন-এটিই অনেকে বলছেন।”