অস্বাভাবিক দামে ইনজেকশন কিনতে বাধ্য করার অভিযোগে এক চিকিৎসককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৭। ওই চিকিৎসক রোগীদেরকে তার নিজের কাছ থেকে ৭০ টাকার ইনজেকশন ২৫০০ টাকায় কিনতে বাধ্য করার প্রমাণ র‌্যাব পেয়েছে বলে জানিয়েছে।

বুধবার (২২ জুলাই) গভীর রাতে চট্টগ্রাম নগরীর ইপিজেড মোড়ে সেইফল্যান্ড ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড রিচার্স সেন্টারে ওই ডাক্তারের চেম্বার অভিযান চালায় র‌্যাব। এসময় সেখান থেকে বিক্রির জন্য রাখা ৭৯টি বিভিন্ন রোগের ইনজেকশন জব্দ করা হয়েছে। গ্রেফতার ডাঃ রবিউল আউয়াল (৪১) বগুড়া জেলার কাহালু উপজেলার পাইকড গ্রামের আহম্মেদ আলী মন্ডলের ছেলে।

র‌্যাবের চট্টগ্রাম জোনের সহকারী পরিচালক এএসপি কাজী মোহাম্মদ তারেক আজিজ জানান, রবিউল বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেন। প্রাইভেট প্র্যাকটিসের পাশাপাশি তিনি চট্টগ্রাম বন্দর হাসপাতালের অধীনে আউটসোর্সিংয়ের ভিত্তিতে নিয়োগ পেয়ে ‘চট্টগ্রাম বন্দর শ্রমিক সেবাকেন্দ্রে’ কর্মরত আছেন।

রবিউল একজন অর্থোপেডিক বিষয়ের ডাক্তার। রোগীদেরকে তার নিজের কাছ থেকে অস্বাভাবিক বাড়তি দামে তিনি ওষুধ কিনতে বাধ্য করেন বলে অভিযোগ পেয়ে আমরা তার চেম্বারে অভিযান চালাই। সেখানে একজন রোগীকে তার কাছ থেকে আড়াই হাজার টাকা দামে একটি ইনজেকশন কিনতে দেখি। বাজারমূল্য যাচাই করে দেখি, এর দাম মাত্র ৭০ টাকা বলে জানান এএসপি তারেক আজিজ।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা বাড়তি দাম নেওয়ার কারণ জানতে চাইলে তিনি আমাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। পরে আমরা তাকে গ্রেফতার করি। উনার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।’

গ্রেফতারকৃত চিকিৎসকের চেম্বার থেকে চারটি সেনোলোন, চারটি টিটাভ্যাক্স, তিরটি ট্রাইলন, তিনটি ইমোসেফ, একটি করে ফেমাটোস ও কিডোফার, ৪৮টি ভিসারল ও ১৫টি অ্যালজিন ইনজেকশন উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানায় র‌্যাব।