ঢাকার ধামরাই উপজেলা প্রেসক্লাবের সহসভাপতি জুলহাস হোসেনকে (৩৫) কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বত্তরা। তিনি বিজয় টিভির ধামরাই উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত ছিলেন। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ধামরাইয়ের বারোবাড়িয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহেব। তিনি বলেন, ‘স্থানীয়রা দুর্বৃত্তদের দুজনকে হাতেনাতে ধরে পুলিশে সোপর্দ করেছে। তাদের কাছে অস্ত্রও পাওয়া গেছে।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পারিবারিক কাজে ধামরাই বারোবাড়িয়া এলাকায় গেলে হঠাৎ একদল দুর্বৃত্ত তার ওপর হামলা চালায়। এ সময় তার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে দুজনকে হাতেনাতে ধরে পুলিশে সোপর্দ করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওই সাংবাদিককে ধারাল অস্ত্র দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করা হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় রক্তাক্ত জুলহাস হোসেনকে ধামরাই উপজেলার পাশের মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়া হলে সেখানকার দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

ওই হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মুহাম্মদ আরিফুর রহমান বলেন, ‘জুলহাস নামের এক ব্যক্তিকে রক্তাক্ত অবস্থায় মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসেন কয়েকজন ব্যক্তি। আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখেছি। হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়। তার শরীরের বিভিন্ন অংশে ধারাল অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।’

এ বিষয়ে ধামরাই প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বাবুল হোসেন জানান, মুঠোফোনের মাধ্যমে সহকর্মী জুলহাসেকে হত্যার বিষয়টি জানতে পেরে মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতাল অভিমুখে রওয়ানা হয়েছেন তারা। তবে জুলহাস খুনের বিষয়ে স্পষ্ট কিছু বলতে পারেননি তিনি।

মানিকগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ভাস্কর সাহা জানান, বিষয়টি মুঠোফোনে জানতে পেরেছেন তিনি। বিস্তারিত খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে।

ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অপরাধ সাইদুর রহমান বলেন, ‘আটক দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মনে হচ্ছে, পারিবারিক কোনো বিষয়ে বিরোধের জের ধরে তাকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে।