একটি কঠিন জিজ্ঞাসা

0
1191

প্রাচ্যের রানী বীর চট্টলার বিশেষ অংশ আনোয়ারা উপজেলা। এখানে প্রকৃতি প্রেমিক মানুষ পরিদর্শন করতে আসেন। প্রকৃতির লীলাভূমীকে দেশি বিদেশি বড় বড় ব্যবসায়ী এবং পর্যটকদের দীর্ঘদিন ধরে আকর্ষন করে চলেছে । রূপময় এবং সমৃদ্ধশালি আনোয়ারা অন্যতম বৈচিত্র্যময় এলাকা। এখানকার সৌন্দর্য্য কল্পনা করে নিতে হয় না। একই সঙ্গে দৃশ্যমান এবং অনুভব্য। বঙ্গোপসাগর এবং কর্ণফুলীর মোহনার পাশে বিশাল এলাকা তার পাশে বিশাল পাহাড় অবস্থিত এত সৌন্দর্যময় লীলাভূমি এশিয়ায় আর কোথাও নাই। প্রেক্ষিতে দেশী-বিদেশী মালটি বিলোনিয়ার ও মালটি ইন্ডাস্ট্রিয়ালদের দৃষ্টিতে বড় বড় কারখানা, শিল্পপার্ক, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, গবেষণাগার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে আমাদের মায়ের বুকের উপর। যেমন মেরিন বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম ইউরিয়া সার কারখানা, কর্ণফুলি ফার্টিলাইজার ফ্যাক্টরি লিমিটেড( KAFCO) DAP-1,DAP -2 বদরপুরা ডক, পারকি বিচ রাডার স্টেশন সু প্রতিষ্ঠিত হয়েছে কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস আনোয়ারার মানুষের প্রায় ৬০০০ একর উৎপাদনমুখী জমি উক্ত শিল্পপতিরা হুকুম দখল করার পরেও আনোয়ারার বেকার ছেলে মেয়েদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হয় নাই। আনোয়ারা সর্বস্তরের জনসাধারণ অত্যান্ত শান্তিপ্রিয়। দাবী মোতাবেক কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা না হলেও কোন বাঁধ প্রতিবাদ ছাড়া সবকিছু মেনে নিয়েছেন। উল্লেখিত শিল্পপ্রতিষ্ঠানে সুফল আনোয়ারা জনসাধারণ লাভ করতে পারেনি। কিন্তু কুফলের সম্মুখীন তাদেরকে হতে হয়েছে। যেমন কারখানার বিষাক্ত পানিতে ফসল, মৎস্য সম্পদ, গবাদি পশু ,এলাকার পরিবেশ দূষণ সবমিলিয়ে এলাকার মানুষের দুর্ভোগের কোন শেষ নেই।প্রকৃতির মহাদুর্যোগের সময়ে COVID-19 করোনা ভাইরাসের নির্মম আচরণে আনোয়ারার আনোয়ারা এবং কর্ণফুলী উপজেলার মানুষের জীবনে নেমে এসেছে অনেক দুঃখ কষ্ট এবং শোকের ছায়া। এই মহা দুর্যোগ অনাকাঙ্খিত হলেও মানুষের পক্ষে এগিয়ে যাওয়া অসম্ভব। COVID-19 এর ভয়াবহতা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য আজকের এই কঠিন দুঃসময় উল্লেখিত বড় বড় শিল্পের মালিকদের প্রত্যেক্ষ সাহায্য সহযোগিতা করা আশু প্রয়োজন। ১৯৮৪ সাল থেকে আজকের দিন পর্যন্ত উল্লেখিত উৎপাদনমুখী শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলো কোটি কোটি বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে বিদেশে পাচার করেছে এই সবগুলো আনোয়ারা এবং কর্ণফুলী মানুষের অধিকার আজকের এই মহা দুর্যোগের সময় আনোয়ারা এবং কর্ণফুলীর জনসাধারণ উক্ত শিল্প কারখানা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে সাহায্য থেকে সম্পূর্ণ বঞ্চিত। অত্র এলাকার মানুষের কঠিন জিজ্ঞাসা, এই মহান দুর্যোগের সময় উক্ত শিল্প কারখানার মালিকরা কোনরকমে কোন সাহায্য সহযোগিতা কেন করা হলো না? অত্যন্ত মানবিক কারণে এবং আমাদের অধিকারের ভিত্তিত করোনাভাইরাস মোকাবিলা করার নিমিত্তে KAFCO,KEPZ শিল্পপার্ক,C.U.F.L,DAP-1,DAP-2 কর্তৃপক্ষের কাছে সবিনয় অনুরোধ অনতিবিলম্বে আনোয়ারা-কর্ণফুলী এলাকার জনসাধারণের জন্য চারটি করোনাভাইরাস হাসপাতাল নগদ আর্থিক সহযোগিতা, খাদ্য সামগ্রী ,ঔষধ এবং মহা দুর্যোগ মোকাবেলায় যাবতীয় উদ্যোগ হিসেবে সঠিক ব্যবস্থা সময়োপযোগী পদক্ষেপ নেয়ার জন্য আবারও আহ্বান জানাচ্ছি। ধন্যবাদন্তে,আনোয়ারা এবং কর্ণফুলীর ক্ষতিগ্রস্ত জনসাধারণ। জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু

লেখক
আলহাজ্ব এমএ হান্নান চৌধুরী(মন্জু)
সমাজ সেবক ও রাজনৈতিক ব্যাক্তি