নগরীর দেওয়ানহাট এলাকায় অবস্থিত বায়তুশ শরফের পীর ও বায়তুশ শরফ কামিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ কুতুব উদ্দিন মারা গেছেন।তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।
তার নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছিল।

আজ বুধবার (২০ মে) বিকাল ৫টার দিকে ঢাকার আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু ঘটে।

মাওলানা কুতুব উদ্দিন ইসলামী ব্যাংকের শরিয়া বোর্ড এবং ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের শরিয়া বোর্ডের চেয়ারম্যানও ছিলেন।

প্রয়াতের ছেলে মো. সালাউদ্দিন বেলাল জানান, হৃদরোগ ও শরীরে সোডিয়াম কমে যাওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে বলে চিকিৎসকরা তাকে জানিয়েছেন। গত বুধবার জ্বরসহ বিভিন্ন উপসর্গে অসুস্থ হয়ে পড়লে মাওলানা কুতুব উদ্দিনকে চট্টগ্রামের মেট্রোপলিটন হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয় মঙ্গলবার রাতে।

চট্টগ্রামে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় মাওলানা কুতুব উদ্দিনের করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছিল।

চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বী বলেন, “চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে করা নমুনা পরীক্ষায় উনার করোনাভাইরাস পজিটিভ এসেছে বলে আমাদের জানানো হয়েছে।”

চট্টগ্রাম নগর পুলিশের বিশেষ শাখার উপ-কমিশনার আবদুল ওয়ারিশ বলেন, “আমরা প্রতিবেদন পেয়েছি উনার কোভিড-১৯ পজিটিভ ছিল। তিনি যেখানে যেখানে গিয়েছিলেন সেসব জায়গার খোঁজ নিচ্ছি আমরা।”

পীরের ছেলে সালাউদ্দিন জানান, তার বাবার জানাজা হবে বৃহস্পতিবার বাদ জোহর বায়তুশ শরফ প্রাঙ্গণে। তারপর সেখানকার কবরস্থানে দাফন করা হবে।

বায়তুশ শরফের পীর হিসেবে চট্টগ্রামসহ সারাদেশে মাওলানা কুতুব উদ্দিনের অসংখ্য ভক্ত রয়েছে।

পুলিশ কর্মকর্তা ওয়ারিশ বলেন, “মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষকেও বলা হয়েছে, পীর সাহেবের দাফন যাতে করোনাভাইরাস আক্রান্ত মৃত ব্যক্তির দাফনের প্রটোকল অনুযায়ী যথাযথ সুরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে করা হয়।”