রাজধানীর খিলগাঁওয়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে পাঁচতলা বাড়ির ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে এক পুলিশ কনস্টেবলের আত্মহত্যা ।পুলিশের বিশেষ শাখা এসবিতে কর্মরত ছিলেন। খিলগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মশিউর রহমান বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

মশিউর রহমান জানান, গত ২৯ এপ্রিল ওই কনস্টেবলের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। এরপরও বিষয়টি নিয়ে তার স্ত্রীর কাছে সন্দেহ প্রকাশ করেন। তিনি ধারণা করতে থাকেন তার পরীক্ষার ফল সঠিকভাবে আসেনি। তোফাজ্জল মানসিকভাবে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন।

তিনি আরও জানান, সোমবার সকাল পৌনে ৮টার দিকে তোফাজ্জল বাসা থেকে দরজা খুলে বের হন। তিনি বাসার বাইরে থেকে দরজা লাগিয়ে দেন। এর কিছু সময় পর পাঁচতলার ছাদ থেকে ভারী কিছু পড়ে যাওয়ার শব্দ পান তার স্ত্রী। বাসার অন্যরা বের হয়ে দেখেন বাসার সামনের রাস্তায় তোফাজ্জলের রক্তাক্ত লাশ পড়ে আছে। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।কনস্টেবল তোফাজ্জল স্ত্রী ও দুই মেয়ে নিয়ে ওই বাসায় থাকতেন।

উল্লেখ্য, দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়ার পর সাধারণ মানুষের পাশাপাশি চিকিৎসক এবং নার্সের পর পুলিশ সদস্যরাই বেশি করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন।