ঝড়ে,ভুমিকম্পে এপারে ওপারে কতো কিছুই হয় ছাড়খার
তবু ভাঙ্গে না যে বর্ডার
ওপার বাংলায় তুই
আর এপার বাংলায় আমি।
বলতো তোরে আমি কি করে জানি?
এপার হতে দেখছি আমি তুই ওপারেতেই
পুরোনো মন্দির টায় বসে আছিস তোর প্রিয়তমার সাথেই,

বিশ্বাস কর তোকে দেখতে আমি ও যেতে চাই
কিন্তু মাঝে কাঁটা তারের বেড়া পার হতে সাহস না পাই,
তোদের দেশের আকাশ বাতাস,নদী,সূর্য্য,মানুষ আর মাটি
আমার দেশেও তাই রয়েছে সব একদম খাঁটি,

তবে কেনো দেশে দেশে এতো হানাহানি?
তবে কেনো এতো টুকরো টুকরো নগর রাজধানী?
কারন বুঝি একটাই হবে সভ্যতায় একতাবোধের অমিল
যেমনটা তোর আর আমার মনের মাঝে গড়মিল,
সুঠাম মানবিকতাবোধের যদি কোনো কালে মিল হতে একবার
তবে দরকার ছিলোনা ঐ কাঁটা তারের বর্ডার,
প্রয়োজন ছিলোনা আর লক্ষ লক্ষ সৈন্যসামন্তের
সারা রাত দিন রোদে বর্ষায় রক্ষা করে যারা আইনের,
এক পক্ষের সেই আইন লঙ্ঘন হলেই তাদের কতো রক্ত ঝড়ে
এভাবেই বুঝি আজকের দেশ রক্ষা করে?
একা আছি ভালো আছি সর্বদাই ভালো থাকবো
তোর পরিবারের শুভকামনাও সবসময় করবো
কাঁটা তারের বেড়ার পাশে তোরে দেখতে এই জনমে আর কখনো না আসবো।
লেখাঃতুলোশী চক্রবর্তী