ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন ফরম জমা দেওয়ার সময় প্রার্থীর সঙ্গে ৫ জনের বেশি লোক রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে এলে কিংবা মিছিল বা ব্যান্ড পার্টি আনলে নির্বাচন বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জেল-জরিমানাসহ মনোনয়ন বাতিলও হয়ে যেতে পারে। সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) সকালে নিজ কার্যালয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবুল কাসেম এ কথা জানান।
আবুল কাসেম বলেন, ‘নির্বাচনি আচরণবিধিতে আছে, প্রার্থী তার সঙ্গে ৫ জনের বেশি সমর্থক নিয়ে আসতে পারবেন না। আমি তাদের কাছে সবিনয়ে অনুরোধ করছি, তারা যেন কেউ আচরণবিধি লঙ্ঘন না করেন।’
তিনি বলেন, ‘গতবারও আমি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিক সাহেবকে বলেছিলাম। তিনি কিন্তু পাঁচজন নিয়েই এসেছিলেন। এ জন্য আমি তাকে সাধুবাদ জানিয়েছিলাম। সবার উদ্দেশে বলতে চাই, যেহেতু ঢাকা শহরে একটি মেগাপ্রজেক্ট চলছে, পাঁচজনের বেশি আসবেন না। যদি কেউ নিয়ে আসেন তার বিরুদ্ধে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা নেবো।’
রিটার্নিং কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘কেউ নির্বাচন আচরণ বিধি ভাঙলে তার বিরুদ্ধে ছয় মাসের কারাদণ্ড অথবা ৫০ হাজার টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে। শুধু তাই নয়,আমরা কমিশনকে লিখিতভাবে প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিলের অনুরোধ করবো।’
নির্বাচন কমিশনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট যুক্ত হয়েছে কিনা জানতে চাইলে আবুল কাসেম বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন থেকে ইতোমধ্যে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আজ সকালে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় ঘুরে এসেছি। আমরা কাল ম্যাজিস্ট্রেট পাবো। তারা দায়িত্বের সঙ্গে কাজটি করবেন বলে আমি আশা করছি।’
প্রতীক বরাদ্দের আগে কেউ প্রচারণা চালাতে পারবে না জানিয়ে তিনি বলেন, ‘৯ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। এরপর আমরা প্রতীক বরাদ্দ করবো। প্রতীক বরাদ্দের আগে কেউ কিন্তু প্রার্থী না।’ এ সময় তিনি নির্বাচনের আগে দুদিন ভোটকেন্দ্রগুলোতে ইভিএমের মাধ্যমে প্রতীকী ভোট গ্রহণের ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানান।