স্বামী-স্ত্রী দু’জনই আমার খুব কাছের বন্ধু ।

একদিন বউটার খুব মন খারাপ, একা একাই কষ্ট পাচ্ছে কাউকে কিছু বলতে পারে না।
জামাইটারও মন খারাপ, সেও কিছু বলতে পারে না।
চেহারা দেখার মতো অবস্থা না, কান্না কান্না অবস্থা ।

বউ বলা শুরু করলো, আমাদের এত বছরের বিবাহিত জীবনে মানুষটার এমন অবস্থা দেখিনি।
খেতে দিলে খেতে চায় না, সারাক্ষণ কি যেনো ভাবে।
রাতদিন কম্পিউটার এর দিকে তাকিয়ে থাকে ।

আমি বুঝি ও নিশ্চয়ই কারও প্রেমে পড়েছে।
এই কথাগুলো
বলার সময় বউটার গলা এমনভাবে কাঁপছিলো যেনো যুদ্ধের মাঠে গুলি খাওয়া কোন সৈনিক।
আমি জামাইকে জিজ্ঞেস করি ঘটনা কি?
যাহা বলিবো সত্য বলিবো কায়দায় বলে, ফেসবুকে এক নজর কাড়া সুন্দরীর ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট আসে, তার সাথেই আমার কথোপকথন চলতে থাকে, মাসের পর মাস।
এত সুন্দরী ফরেনার মেয়ে, আমি আমাকে ভুলে গেলাম। আমার পুরো জগতটাই ঐ মেয়ে দখল করে ফেলেছে ।

আমরা দেখা করবো ঠিক হয়।
ভিসা পাসপোর্ট রেডি।
তাতা থৈ থৈ সুন্দরী বলে রওয়ানা দেওয়ার আগে একবার ভিডিও কলে আসে।
সব গুছিয়ে ভিডিও কলে বসি।
আমি অস্থির, আমি আমাকেও ভুলতে বসেছি ।
ভিডিও কলে ঐ থৈ থৈ সুন্দরী যা দেখালো, তাতে অচেতন হয়ে চেয়ার থেকে পড়ে গেলাম।
বউ এর ডাকে যখন হুশ আসলো,
প্রথমেই টিকেট টা ছিঁড়ে কুচি কুচি করি।
লেডি বয় যে এত থৈ থৈ সুন্দরী কে জানতো।
কথা শেষে আমরা তিনজনই হাসতে হাসতে থৈ থৈ।
লেখাঃদেবী গাফফার