বাংলাদেশ ও ভারত ২০১৮ এশিয়া কাপের ফাইনাল ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে।

দুবাইয়ে ম্যাচটি ২৮ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫টা ৩০ মিনিটে শুরু হবে।

বাংলাদেশ ও ভারত এখন পর্যন্ত এশিয়া কাপে ১১ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে।

যার মধ্যে ১০টিতে ভারত ও একটিতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ।

তবে ক্রীড়া বিশ্লেষক মিহির বোস বলছেন, “যাদের জেতার কোনো সুযোগ থাকে না, তারা যদি মনে করে জিতবে সেক্ষেত্রে সুযোগ বেড়ে যায়। কাগজে মনে হয় ইন্ডিয়া জিতবে, কিন্তু খেলা তো কাগজে হয় না খেলা মাঠে হয়।”

বাংলাদেশ পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩৭ রানের জয় পেয়েছে।

সুপার ফোরের এই ম্যাচটি জিতেই বাংলাদেশ ফাইনালে পা রেখেছে।

মিহির বোস মনে করছেন, “বাংলাদেশ পাকিস্তানকে হারিয়ে ফাইনালে গেছে এটা বড় ব্যাপার। তবে জিতবে কী না সেটা বলা মুশকিল। ইন্ডিয়া দলে বিরাট কোহলি নেই। বাংলাদেশের টিম যেভাবে পাকিস্তানকে হারিয়েছে সেটা একটা আত্মবিশ্বাস দিয়েছে।”

মিহির বোসের মতে, ভারতের অতি আত্মবিশ্বাস ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে দলটির জন্য।

তিনি বলেন, “ইন্ডিয়া যখন ভাবে আমরা জিতে গেছি। তখন বাংলাদেশ ইন্ডিয়াকে চমকে দিতে পারে।”

ভারত ও বাংলাদেশের দলীয় শক্তির কথা বিবেচনা করে মিহির বোস মনে করেন যে বাংলাদেশ ভারতের চেয়ে পিছিয়ে।

তার মতে, “বোলিংয়ের হিসেব করলে ভারত এগিয়ে, পেস স্পিন মিলিয়ে বৈচিত্র্য আছে। পরিসংখ্যান বলবে পাল্লা ভারতের দিকে। ২০০৭ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ ভারতকে হারিয়েছিল বিশ্বকাপে প্রথমবার। তবে এটার সুযোগ কম বাংলাদেশকে খেলতে হবে ২০০%, ভারতের খেলতে হবে ৫০%।”

বাংলাদেশের ক্রীড়া বিশ্লেষক ও ক্রিকেট বোর্ডের কোচ নাজমুল আবেদীন ফাহিম বলছেন, বাংলাদেশ তার পুরো শক্তির দল নিয়ে আসেনি। তামিম ও সাকিব নেই।

তিনি যোগ করেন, ভারত এখানে তুলনামূলক শক্তিশালি, তবে বাংলাদেশ এখন যে মানসিক অবস্থায় আছে ফাইনাল হেরে গেলে দলটি খুবই হতাশ হবে।

মি. ফাহিম মনে করছেন, পাকিস্তানের সাথে যেভাবে ফিল্ডিং করেছে, যে শরীরি ভাষায় খেলেছে সেটা বাংলাদেশের জয়ের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেবে।

বাংলাদেশের বোলিং লাইন আপ ভারতের ব্যাটসম্যানদের সামলাতে পারবে কি না এই প্রশ্নের জবাবে নাজমুল আবেদীন ফাহিম বলেন, পুরো ৫০ ওভার ভারতকে চাপে রাখার মতো বোলার নেই। তবে মিরাজ, মুস্তাফিজ এরা ফর্মে আছে।

মেহেদী হাসান মিরাজ ও মুস্তাফিজুর রহমান বাংলাদেশের বোলিং উদ্বোধন করছেন।

ফাইনালের আগ পর্যন্ত মুস্তাফিজ এই আসরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি।

বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং এখন খুব নাজুক অবস্থায় আছে বলে মনে করেন মি. ফাহিম।

তিনি বলেন, “সংগ্রাম করছে ব্যাটসম্যানরা। এটা সময় যে আরো ভালো কিছু করার, কোনঠাসা অবস্থাতেই হয়তো ভালো কিছু করতে পারবে। লিটনের বড় শট খেলার ক্ষমতা আছে। আগ্রাসী শুরু করলে বাংলাদেশকে মিডল অর্ডার এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবে।”