বাংলাদেশের জনপ্রিয় নায়ক শাকিব খান এখন ভারতের কলকাতায়ও দারুণ জনপ্রিয়। তাঁর অভিনয় ও ব্যক্তিত্বের প্রশংসা সেখানকার অভিনয়শিল্পী ও প্রযোজক–পরিচালকদের মুখে হরহামেশাই শোনা যাচ্ছে। এদিকে সিনেমাপ্রেমী দর্শকের কাছে তুমুল জনপ্রিয় শাকিব দেশের ভেতরে চলচ্চিত্রের গুটিকয়েক মানুষের কাছে চক্ষুশুল। তাঁদের নানা চক্রান্তের শিকারও হন তিনি। তাই তো শাকিবের কোনো সিনেমার মুক্তি কিংবা শুটিংয়ের সময় পোহাতে হয় নানা জটিলতা। ‘নাকাব’ ছবি নিয়ে তেমনই এক সমস্যায় পড়তে হয়েছে। অবশেষে সব জটিলতাকে পাশ কাটিয়ে দর্শকদের কাছে যাচ্ছে শাকিবের সিনেমা ।

আজ সেন্সর ছাড়পত্র পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দেশের ১১১ প্রেক্ষাগৃহে ‘নাকাব’ ছবিটি মুক্তির বন্দোবস্ত করেছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া।

কাল শুক্রবার থেকে দেশের সিনেমাপ্রেমী দর্শকেরা দেখতে পাবেন শাকিব খান অভিনীত ‘নাকাব’। ঈদুল আযহার পর লম্বা সময় ধরে দেশের প্রেক্ষাগৃহে নতুন কোনো সিনেমা মুক্তি পায়নি। এই সময়টাতে পুরনো ছবিগুলো ছিল প্রেক্ষাগৃহ মালিকের ভরসা। এদিকে শাকিব খানের ছবি মুক্তিতে প্রেক্ষাগৃহ মালিকেরা আবার আশাবাদি হয়ে ওঠেছেন। তাঁদের বিশ্বাস, শাকিব খানের সিনেমা চালিয়ে অন্তত দুইটা সপ্তাহ ব্যবসা তো করতে পারব।

এদিকে শাকিব খানের ‘নাকাব’ মুক্তির ঘোষনা আসতে না আসতেই পিছিয়ে গেছে ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’ ছবির মুক্তির দিনক্ষণ। অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তির পরিকল্পনা প্রায় চূড়ান্ত ছিল। কিন্তু শাকিব খানের ছবি মুক্তি পেলে কমপক্ষে দুই সপ্তাহ প্রেক্ষাগৃহ ব্যবসা করে, এটা নাকি কয়েক বছর ধরে অনেকটা অঘোষিত নিয়ম হয়ে আসছে। আর তাই শাকিবের সিনেমার মুক্তিতে প্রেক্ষাগৃহ মালিকেরা ওই সময়টাতে অন্য কোনো নায়ক–নায়িকার সিনেমার নিয়ে খুব একটা ভরসা পান না। প্রযোজকেরাও ব্যবসায়িক ক্ষতির আশঙ্কা থেকে পারতপক্ষে শাকিব খানের ছবি মুক্তি পেলে অন্য কাউকে নিয়ে ঝুঁকি নিতে চান না।

বিকেলে সেন্সর বোর্ড সদস্যরা শাকিব খান অভিনীত ‘নাকাব’ ছবিটি দেখেন। বেশিরভাগ সদস্যই ছবিটি দেখে ভূয়শী প্রশংসা করেন। এরপর সবার সম্মতিতে ছবিটি বিনাকর্তনে ছাড়পত্র পায়। সেন্সরবোর্ড সদস্য ও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘ঈদের পর সেই অর্থে কোনো ছবিই মুক্তি পাচ্ছিল না, এ নিয়ে ভীষণ চিন্তার মধ্যে পড়ে যায় প্রেক্ষাগৃহ মালিকেরা। শাকিব খানের ছবিটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে বলে প্রেক্ষাগৃহ মালিকেরা স্বস্তির নিঃশ্বাস নিয়েছেন। আবার প্রেক্ষাগৃহে চাঙ্গা হবেও বলতে পারি। ছবিটি দারুণ। দর্শকেরা যতক্ষণ প্রেক্ষাগৃহে থাকবে, পুরোটা সময় বেশ উপভোগ করবেন। বিশেষ করে বিরতির পর থেকেই টানটান উত্তেজনা। শাকিবের দ্বৈত চরিত্র, অনেক নতুন ব্যাপার–স্যাপার আছে।’

‘নাকাব’ প্রযোজনা করেছে ভারতের কলকাতার প্রথম সারির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস। ‘নাকাব’ ছবির মাধ্যমে প্রথমবার এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করেছেন বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নায়ক শাকিব খান। তাঁর সঙ্গে ছবিতে দেখা যাবে কলকাতার দুই নায়িকা নুসরাত ও সায়ন্তিকা। রাজিব বিশ্বাস পরিচালিত ‘নাকাব’ ছবিতে শাকিব খান দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

অবশেষে ‘নাকাব’ ছবিটি বিনাকর্তনে ছাড়পত্র পাওয়াতে খুশি শাকিব খানও। তিনি বলেন, ‘আজ আমার জন্য একটি বিশেষ দিন। আমার ছেলে আব্রামের জন্মদিন। এদিনে আরেকটি আনন্দের সংবাদ পেলাম। শুনেছি কলকাতায় মুক্তির পর ছবিটি সবাই পছন্দ করেছে। বাংলাদেশেও ছবিটি দেখার জন্য ভক্তদের অপেক্ষার খবর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে জানতে পেরেছি। ভক্তদের অপেক্ষার পালা শেষ হচ্ছে, যাঁদের জন্য আমি শাকিব খান।’

কথায় কথায় শাকিব বলেন, ‘কলকাতায় ছবিটি ২১ সেপ্টেম্বর মুক্তি পেয়েছে। আমাদের সবার ইচ্ছে ছিল ছবিটি একই সঙ্গে বাংলাদেশ ও ভারতের দর্শকেরা দেখুক।’

ভৌতিক গল্পের ছবি ‘নাকাব’-এ বাংলাদেশের শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন কলকাতার জনপ্রিয় দুই নায়িকা নুসরাত ও সায়ন্তিকা। ছবিটির পরিচালক রাজীব বিশ্বাস। ‘নাকাব’ ছবির ট্রেলারে দেখা গেছে, অদ্ভুত ক্ষমতার অধিকারী শাকিব খান। চাইলেই মৃত মানুষের রূপ ধারণ করতে পারেন, কথা বলেন, চলাফেরাও করতে পারেন। হঠাৎ তাঁর সঙ্গে এক ভূতের দেখা হয়, যে জীবিত অবস্থায় দুজনকে মেরে ফেলে, যাঁরা দেখতে হুবহু তার মতো! এদিকে খুনের কারণে শাকিবের পেছনে ছোটে পুলিশ। শাকিবও নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে ভূতকে আইনের হাতে তুলে দিতে চায়। আসল শাকিব খান ও ভূত শাকিব খানকে খুঁজতে গিয়ে ঘটতে থাকে নানা ঘটনা। এভাবেই এগিয়ে যায় ‘নাকাব’ ছবির গল্প।