হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত ‘দেবী’ চলচ্চিত্রে ‘মিসির আলি’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী। গত সপ্তাহে শেষ হয়েছে এর ডাবিং। এখন ছবির শেষ মুহূর্তের কাজ চলছে। আগামী অক্টোবরে ‘দেবী’ মুক্তির কথা রয়েছে। ‘দেবী’ ও টিভিতে ঈদের কাজগুলো নিয়ে গতকাল কথা হলো চঞ্চল চৌধুরীর সঙ্গে

‘দেবী’ ছবির সর্বশেষ খবর কী?
গত সপ্তাহে আমার অংশের ডাবিং শেষ করেছি। এর আগে দুবার ডাবিং শেষ করেছিলাম। কিন্তু ছবির সম্পাদনায় সংশোধনী আনতে গিয়ে নতুন করে কিছু অংশের ডাবিংও করতে হয়েছে আমার।

৭ সেপ্টেম্বর ‘দেবী’ মুক্তির কথা ছিল। নতুন মুক্তির দিন কি ঠিক করা হয়েছে? 
ছবির কাজ শেষ হলেই সেন্সরে জমা দেওয়া হবে। সেন্সর বোর্ড থেকে ছাড়পত্র পেলেই মুক্তির চূড়ান্ত তারিখ ঘোষণা করা হবে। তবে পরিকল্পনা আছে অক্টোবরেই ছবিটি মুক্তির।

সামনে ছবির প্রচারণায় নতুন কী কী পরিকল্পনা আছে? আপনি কি যুক্ত হচ্ছেন প্রচারাভিযানে? 
পোশাকে ‘দেবী’র থিম ও সংলাপ ব্যবহার করে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। ২৮ অক্টোবর বিশ্বরঙের একটি ফ্যাশন শোতে ‘দেবী’র বিষয় ধরে নকশা করা পোশাক পরে মডেলরা মঞ্চে হাঁটবেন। এ ছাড়া বিভিন্ন টেলিভিশনে তো আমরা ‘দেবী’র প্রচার করছি। ছবিটির কথা সবাইকে জানানোর জন্য শিগগিরই আরও কিছু ভিন্নধর্মী প্রচারণায় নামব আমরা।

নতুন ছবির প্রস্তাব পাচ্ছেন? এরপর কোন সিনেমায় দেখব আপনাকে? 
‘দেবী’ ছবির শুটিংয়ের পর গত দুই মাসে বাংলাদেশ-কলকাতা মিলিয়ে প্রায় ২০টির মতো ছবিতে কাজের প্রস্তাব পেয়েছি। কিন্তু আমি যে মানের ছবিতে কাজ করি, সে ধরনের পরিচালক, গল্প ও চরিত্র পাচ্ছি না। তাই একটি ছবিতেও চুক্তিবদ্ধ হইনি।

গত ঈদুল আজহায় ডজনখানেক নাটকে অভিনয় করেছেন। সাড়া কেমন ছিল? 
অনেক নাটকই দর্শক পছন্দ করেছেন। এ নিয়ে তাঁরা তাঁদের ভালো লাগার কথাও জানিয়েছেন। তবে ‘আয়েশা’, ‘ভাগের মা’, ‘লাগ ভেলকি লাগ’, ‘হিরো কেন ভিলেন’, ‘চরিত্র : স্ত্রী’, ‘টাউট নম্বর ওয়ান’ নাটকগুলো থেকে বেশি সাড়া পেয়েছি।

এখন ব্যস্ততা কী নিয়ে? 
গত দুই ঈদের নাটকের কারণে নিয়মিত ধারাবাহিকগুলোয় সময় দিতে পারিনি। এখন মাসুদ সেজানের দুটি ধারাবাহিক ‘ডুগডুগি’ ও ‘খেলোয়াড়’, সাগর জাহানের ‘টি টোয়েন্টি’, সকাল আহমেদের ‘ভদ্রপাড়া’ ও সাইদুর রাসেলের ‘অষ্টধাতু’র শুটিং করছি।

‘দেবী’র মিসির আলি নাকি ‘আয়নাবাজি’র আয়না—কোন চরিত্রটিতে অভিনয় বেশি কঠিন? 
দুটি চরিত্রই কঠিন। তবে মিসির আলি বেশি চ্যালেঞ্জিং।

হুমায়ূন আহমেদের মিসির আলি চরিত্রে অভিনয় করলেন। আপনার কী মনে হয়, হিমুকে নিয়ে সিনেমা হলে বাংলাদেশের কোন অভিনেতা তাতে ভালো করবেন? 
জাহিদ হাসান, মোশাররফ করিম, আফরান নিশো। আমি নিজেও করতে পারি।

কিসে ভয় বেশি—ফ্লপ সিনেমায়, নাকি স্ক্রিপ্ট ছাড়া নাটকে অভিনয়ে? 
স্ক্রিপ্ট ছাড়া নাটকে অভিনয় করায়।